হিন্দুদের সালাম দেওয়ার নিয়ম | অমুসলিমদের সালাম দেওয়ার নিয়ম

আজকে আমরা আপনাদের সামনে এমন একটি ধর্মীয় বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করতে চাচ্ছি যে বিষয়টি সম্পর্কে অনেকেই বিভিন্ন রকম তথ্য সংগ্রহ করার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করে। আজকে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব অমুসলিমদেরকে অর্থাৎ হিন্দু ভাই-বোনদেরকে সালাম দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। আমাদের সমাজে এমন কিছু হিন্দু ভাই এবং বোনেরা রয়েছেন যাদেরকে আমাদের সম্মান করা অবশ্যই প্রয়োজন এবং তাদেরকে সম্মান দেখাতে গিয়ে সালাম অথবা আদর দেওয়ার প্রয়োজন হয়। অমুসলিম অথবা হিন্দু ভাইদের শালা মাদার দেওয়া নিয়ে ইসলাম কি বলে এ ধরনের কিছু তথ্য নিয়ে আমরা আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়েছি যাতে আপনারা আমাদের এই নিবন্ধনটি থেকে খুব সুন্দর ভাবে জানতে পারেন অমুসলিমদেরকে অর্থাৎ হিন্দুদের কে সালাম দেওয়ার নিয়ম গুলো এবং জায়েজ আছে কিনা সে সম্পর্কে।

আমাদের সমাজে বসবাস কৃত কিছু শিক্ষিত মানুষ আছেন যাদেরকে নিয়েই আমাদের প্রশ্ন। সমাজে কিছু হিন্দু বড় ভাই অথবা সম্মানী ব্যক্তি আছে যাদেরকে আমাদের সম্মান করা প্রয়োজন এবং সময়ের ক্ষেত্রে অর্থাৎ সম্মানের ক্ষেত্রে তাদেরকে সালাম দেওয়ার প্রয়োজন হয়। হিন্দু বড় ভাইদের বা সম্মানী ব্যক্তিদের কে সালাম দেওয়াতে ইসলাম কি বলে এবং ইসলাম কতটুকু গুরুত্ব দেয় সে সম্পর্কে জানবো আজকে আমরা। এছাড়াও এ ধরনের বিষয়গুলো নিয়ে অনেকেই জানার আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং অনুসন্ধান চালান তাইতো আমরা আমাদের এই নিবন্ধনটিতে সুন্দরভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করলাম সকল তথ্যগুলো। আপনিও আমাদের এই প্রতিবেদনটি থেকে সকল তথ্যগুলো সুন্দরভাবে সংগ্রহ করতে পারেন খুব অল্প সময়ে তবে আমাদের নিবন্ধন মনোযোগ সহকারে দেখতে হবে।

হিন্দুদের সালাম দেওয়ার নিয়ম

হিন্দুদের সালাম দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে আপনি যদি জানতে চান তাহলে এই নিবন্ধনটি মনোযোগ সহকারে দেখতে হবে। হিন্দুদেরকে সালাম দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে সমাধান আমরা নিয়েছি ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার বাংলাদেশ বসুন্ধরা ঢাকা থেকে। আমি অনেক কষ্টে এই তথ্যগুলো সংগ্রহ করেছি এবং সুন্দরভাবে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছি। হিন্দুদের সালাম দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে ইসলাম যা বলে তা সুন্দরভাবে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করলাম। অমুসলিম বা হিন্দুদের সালাম দেওয়া বৈধ নয় এটা সম্পূর্ণ ইসলামের পক্ষে অবৈধ। কোন হিন্দু মানুষকে সম্পর্কের খাতিরে অর্থাৎ সম্মানের প্রয়োজন যদি আপনাকে সালাম দিতে হয় তাহলে আপনি সালাম দিতে পারেন তবে সেটি অন্য নিয়মে। সালাম দেওয়ার নিয়ম কি আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করলাম।

আসসালামু আলাইকুম মানিত্তাবাআল হুদা,

এবং আপনাকে যদি কোনো অমুসলিম ভাই অথবা হিন্দু ভাই সালাম দেয় তাহলে অবশ্যই আপনি সালামের উত্তর দিবেন তবে সালামের উত্তর দেওয়ার নিয়ম কি ভিন্ন। আপনি কি কেউ সালাম দিলে আপনি তদত্তরে বলতে পারেন, ওয়ালাইকুম, এই উত্তর দিয়ে আপনি তাকে সন্তুষ্ট করতে পারেন।

বন্ধুত্বের ক্ষেত্রে মুসলিমদের উপর অমুসলিমদের প্রাধান্য দেওয়া নিন্দনীয় নয়। আপনি চাইলে এই হিন্দু সমাজে সকল মানুষের সাথে চলাফেরা করতে পারেন বন্ধুত্বের সম্পর্ক নিয়ে। তাদের সাথে সম্পন্ন মুসলিম ভাইদের মতোই চলাফেরা করতে পারেন লেনদেন করতে পারেন ওঠাবসা সব ধরনের চলাফেরা করতে পারে। তবে একজন হিন্দু পরিবারে আপনার খাওয়া-দাওয়ার সম্পূর্ণ নাজায়েজ। হিন্দু বা অন্য মুসলিম ভাইদের সাথে চলাফেরা করতে পারেন তবে তাদের বাড়িতে খাওয়া দাওয়া করাটা আপনার ঠিক হবে না।

তবে তাদের সঙ্গে যাবতীয় লেনদেন, সদাচরণ ও সাধারণ সম্পর্ক রাখা বৈধ। (সুরা মায়েদা, আয়াত : ৫১, সুরা আল ইমরান, আয়াত : ১১৮, আল বাহরুর রায়েক : ৮/৩৭৪, ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৯/৫৪৫, ফাতাওয়ায়ে ফকিহুল মিল্লাত : ১২/১০৩)

আমরা আমাদের এই নিবন্ধনটিতে তুলে ধরার চেষ্টা করলাম আপনার কিভাবে অমুসলিম ভাইদের অর্থাৎ হিন্দু ভাইদের সালাম দিবেন এবং তাদের সালামের উত্তর দিবেন। আশা করি আমাদের এই প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে দেখলে আপনি সুন্দর কিছু তথ্য সংগ্রহ করতে পারবেন এবং উপকৃত হবেন। প্রতিবেদনটি ভালো লাগলে অবশ্যই সবগুলোর সাথে শেয়ার করবেন যাতে তারা এ ধরনের তথ্যগুলো জানতে পারে এবং ধর্মের উপর বিশ্বাস অর্জন করতে পারে এবং ধর্মের ব্যবহার করতে পারে। এছাড়াও আপনি আমাদের কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না যাতে আপনার কমেন্ট দেখে অন্য কেউ উৎসাহিত হয় আপনাদের এই প্রতিবেদন থেকে নানা রকম তথ্যগুলো সংগ্রহ করতে। আপনার মূল্যবান সময় দিয়ে সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top