নোয়াখালী ভাষায় গালি | নোয়াখালী ভাষায় কথোপকথন

বাংলাদেশের মধ্যে জনপ্রিয় জেলা গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি জেলা হলেন নোয়াখালী। নোহাখালী জেলাপি পরিচিত রয়েছে সকল মানুষের সাথে ইতিপূর্বেই আপনি নোয়াখালী জেলা সম্পর্কে নানা রকম তথ্য জানতে পেয়েছেন এবং নোয়াখালী জেলা সম্পর্কে নানা রকম তথ্য পেয়েছেন। আছি আমরা আপনাদের সামনে একটি ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিবেদন প্রকাশ করতে যাচ্ছি আমাদের আজকের প্রতিবেদনটি হবে নোয়াখালী ভাষা সম্পর্কে। আপনি আমাদের এই প্রতিবেদনটি থেকে সহজেই সংগ্রহ করতে পারবেন নোয়াখালী ভাষায় গালিগুলো যে গালিগুলো সুন্দরভাবে সংগ্রহ করে আপনি আপনার প্রিয় ব্যক্তিদের কে গালি দিতে পারেন বা বকা দিতে পারেন এবং তাদেরকে অপমানিত করতে পারেন।

কিছু ভিজিটর রয়েছেন যারা তাদের বন্ধু-বান্ধবদের সাথে নোয়াখালী ভাষায় কথা বলার চেষ্টা করেন এবং তাদেরকে নোয়াখালী ভাষায় অপমান করার চেষ্টা করেন। আপনি যদি আপনার বন্ধুকে অপমান করতে চান কিন্তু সে যদি কখনোই বুঝতে না পারে তাহলে নোয়াখালীর ভাষায় অপমান করুন তাহলে আপনার বন্ধু কখনোই বুঝতে পারবেন আপনার মুখের দিকে তাকিয়ে থাকবে কিন্তু নিজেকে অপমানিত বোধ করবে। তাই আমরা আপনাদের সামনে নোয়াখালী ভাষা সম্পর্কে কিছু গালি গুলো সুন্দর ভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করলাম যে গালিগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার প্রিয় ব্যক্তিদের কে বা বন্ধুদেরকে অপমান করতে পারেন এবং মজা নিতে পারে।

নোয়াখালী ভাষায় গালি

নোয়াখালীর স্থানীয় কিছু বন্ধুবান্ধব রয়েছে যে বন্ধু-বান্ধবগুলো তারা নোয়াখালীর কথা ব্যবহার করে বা নোয়াখালী এর ভাষা ব্যবহার করে আমাদেরকে প্রতিনিয়ত অপমান করে যাচ্ছে, তাদের ভাষা বুঝতে না পেয়ে আমরা চুপ করে তাদের মুখের দিকে তাকিয়ে শুধুমাত্র তাদের কথা শোনা যায় কিন্তু অপমান করছে সেটা না বুঝেই বসে থাকি। তবে আজকে থেকে আপনি আমাদের এই প্রতিবেদনটি থেকে জানতে পারবেন মহাকালি ভাষায় গালিগুলো যে গালিগুলো সম্পর্কে ধারণা নিয়ে আপনাকে কেউ অপমান করলে সেটি বুঝতে পারবেন এবং তাৎক্ষণিক তার উত্তর দিতে পারবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে আপনার বন্ধুদেরকে অর্থাৎ নোয়াখালীর কিছু বন্ধুকে অপমান করতে পারেন তাদের ভাষায়, নোয়াখালীর ভাষায় যদি আপনি তাকে অপমান করেন তাহলে সে আপনার ভাষা বুঝতে পারবে এবং আপনাকে সে অবাক হয়ে দেখবে, এবং আপনার কথায় সে অপমানিত হবে।

  • উপরোক্ত সমূহে ‘শালার পুত শালা’ সম্বোধন করে আলস্নার ওয়াস্তে না খাওয়ার তাগিদ দেয়া হচ্ছে।উদাহারণ অর্থে: ‘এই বাল আঁর দেআ আছে।’
  • মাথার উরপে নাই চাল, হইন্নির হুত দ্যায় হাল।’অর্থাৎ- যার মাথার উপর কান ছাদ কিংবা আশ্রয় নেই, সে কী না ভিখারীর ছে।ে অথচ সে লাফালাফি বা তড়পায়।
  • একে অন্যকে ধমক অর্থে: ‘হেড়া-আলির হুত, ধরি হাউয়া বাঙ্গি দিয়ুম।’অর্থাৎ- নির্লজ্জ মায়ের ছেলে তোমার বাসা ভেঙে দেব।তোমাকে উচিৎ শিক্ষা দিব।
  • ভাবিকে‘খানকির ঝি খানকি হাজি লই যাই হিরা করগই।’অর্থাৎ- বেশরমের মেয়ে, টুকরি নিয়ে ভিড়্গা করে এসো।
  • তুঁই কিয়ের ইমাম অইচ? তুঁইত হোলা হোন্দাইন্না ইমাম।’অর্থাৎ- তুমি কিসের ইমাম? তুমিতো ছেলের সঙ্গে সমকাম কর।

আপনি যদি বকা দিতে চান এবং আপনার বন্ধুদের সাথে মজা নিতে চান তাহলে আমাদের সাথে এই নোয়াখালী ভাষাগুলো শিখতে পারেন এবং নোয়াখালী ভাষার গালিগুলো সংগ্রহ করতে পারেন। নোয়াখালী ভাষাগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার প্রিয় ব্যক্তিদের কে অপমান করতে পারবেন সহজেই এবং মজা নিতে পারেন এজন্য এই প্রতিবেদনটিতে তুলে ধরা আধুনিক এবং মজাদার কিছু গালি তুলে ধরা হলো। নোয়াখালীর ভাষাটি খুব জনপ্রিয় হওয়ায় অনেক মানুষে এ ভাষার সম্পর্কে জানে এবং অনেকেই এই ভাষা নিয়ে অনেকের সাথে মজা নেওয়ার চেষ্টা করে।

  • এ্য্যাঁ হেতে লাগে যে হ্যাড়ম জাহাজের কচ্ছপ।’অর্থাৎ- এখানে আক্রমিত ব্যক্তিকে অবজ্ঞাস্বরূপ বড় পদের লোকহিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।
  • এরে হইন্নির ঝি, ইয়ানে তোর তালুকদারী আছে নি।’অর্থাৎ- শাশুড়ি বউকে এখানে ভিখারিনীর কন্যা বলে অভিহিত করে।
  • হতিনের ঘরের মিতাইন, তোর মুরত আঁর জানা আছে।’অর্থাৎ- সতীনের ঘরের মিতাইন তোমার ড়্গমতা আমার জানা আছে।
  • সামাজিক ঝগড়ার সূত্রে: ‘অডা জিয়ানতুন আইছত এ্যাককারে হিয়ানে হাড়াই দিয়ুম।’কিংবা ‘অডা ………জিয়ানতুন হইছত, এককারে হিয়নদি ঠেলি ভরি দিয়ুম।’অর্থাৎ- জন্মের স্থানে পৌঁছিয়ে দেব।
  •  ‘হালুকেলা হাইছত? বাদাইমমার ঘরের বাদাইমমা।’অর্থাৎ- বেকারকে উদ্দেশ্য করে বলা হচ্ছে, তমি কি এখানে মাগনা খাবার পেয়েছ?
  • ‘হইন্নির হুত, হুডানী করিচ্চা, মার হাউয়াত বাল আছে নি?’অর্থাৎ- ভিখারীনির ছেলে, সৌখিনতা করোনা, তোমার মায়ের কোন সঞ্চয় আছে?
  • বেলিকের বাচ্চা বেলিক, আক্কল তবিয়ত কি উডি গেছেনি তোর?’অর্থাৎ- বেয়াদবের মেয়ে, তোমার কি আক্কেল সালাম উঠে গেছে? কিংবা তোমার কি শ্রদ্ধাবোধ নেই?
  • ‘কীয়ারে অড়া, হড়া লেয়া কি তোর টঙ্গো উটছেনি।’অথবা ‘কীরে অডা, হড়ালেয়া কি তোর গাছের আগাত উঠছেনি।’অথবা ‘কীরে অডা, হড়ালেয়া কি তোর কাঁড়ে উঠছেনি!’

বর্তমান সময়ে নাটক সিরিয়াল সিনেমার সহ বিভিন্ন ড্রামা শর্ট ফিল্ম গুলোতে নোয়াখালীর ভাষা প্রতিনিয়ত ব্যবহার করে চলেছে। তাই নোহাকালীর ভাষাগুলো সকলের সাথে বেশ পরিচিত তবে অনেকেই এই ভাষার কথা বলতে পারেন না। যদিও আমরা বিভিন্ন স্থান থেকে নোয়াখালীর ভাষাগুলো শুনেছি এবং বুঝতে পারি তবে এ ভাষায় কথা বলতে আমাদের কষ্ট হয় বা এই ভাষায় মানুষকে অপমান করতে আমাদের কষ্ট হয় তাই আপনি চাইলে আমাদের এই প্রতিবেদনটি থেকে নোয়াখালীর ভাষায় গালিগুলো সংগ্রহ করতে পারেন এবং তাদেরকে অপমান করতে পারেন। আপনি যদি নোয়াখালীর ভাষা সম্পর্কে জানে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি কি কয়েকটি গালি আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন আমরা আপনাদের গালিগুলো সুন্দরভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করব। এছাড়াও আপনি যদি নোয়াখালীর ভাষায় কোন গাড়ির উত্তর খুঁজে না পান তাহলে সেটিও কমেন্ট করে জানাতে পারেন আমরা খুব সহজেই আপনার উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top